বুধবার , ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
শিরোনাম

সাত মাস পর নিখোঁজ ব্যবসায়ীর কঙ্কাল উদ্ধার

220150327165913৭১বাংলা: ঢাকার অদূরে আশুলিয়া থেকে নিখোঁজের সাত মাস পর বিল্লাল হোসেন (৫০) নামের এক ব্যবসায়ীর কঙ্কাল উদ্ধার করেছে র‍্যাব-৪-এর একটি দল। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আশুলিয়ার বড় ওয়ালিয়া এলাকার একটি গরুর খামার থেকে তাঁর কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়। এ সময় হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ছুরি ও একটি দা এবং নিহত বিল্লালের মুঠোফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত বিল্লাল হোসেন মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলার বরন্দী কাস্তা গ্রামের মৃত গহের আলীর ছেলে। তিনি ইটের ব্যবসা করতেন। ঢাকার ধামরাই উপজেলার বিভিন্ন ভাটা থেকে ইট কিনে তিনি সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করতেন।

হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। তাঁরা হলেন মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার চর তিল্লী গ্রামের নাসির উদ্দিন (৪৫) ও নাটোরের সিংড়া উপজেলার ডাহিয়া গ্রামের আয়নাল হকের স্ত্রী মুর্শিদা আক্তার (৩৪)। নাসির বড় ওয়ালিয়া এলাকায় একটি গরুর খামারে কাজ করতেন এবং মুর্শিদা সাভারের চাপাইন এলাকায় বাসা ভাড়া করে থাকতেন।

র‍্যাব-৪ সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ মে বিল্লাল হোসেনের ছেলে লিটন হোসেন তাঁর বাবা নিখোঁজ হয়েছেন বলে র‍্যাবের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে নিখোঁজ বিল্লালের খোঁজে মাঠে নামের র‍্যাব-৪-এর সদস্যরা। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় গতকাল বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে আশুলিয়ার বড় ওয়ালিয়া এলাকা থেকে নাসির উদ্দিনকে আটক করা হয়। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি বিল্লালকে হত্যার কথা জানান। পরে রাতেই সাভারের চাপাইন থেকে মুর্শিদাকে আটক করা হয়। এরপর তাঁদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে ওই খামারের ভেতর মাটিচাপা দেওয়া বিল্লালের লাশের কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়। পরে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য কঙ্কাল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

র‍্যাব সূত্র আরও জানায়, গত ১৩ এপ্রিল দুপুরে পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে নাসিরের সঙ্গে দেখা করতে বিল্লাল হোসেন ওই গরুর খামারে যান। পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী নাসির ও মুর্শিদা তাঁকে গলা কেটে হত্যা করে লাশ খামারের ভেতরে মাটিচাপা দেন। বিল্লালের কাছে থাকা লক্ষাধিক টাকা লুট করতে তাঁকে হত্যা করা হয় বলে নাসির প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে র‍্যাব-৪-এর কমান্ডার মেজর আবদুল হাকিম বলেন, র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে নাসির উদ্দিন ও মুর্শিদা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় নিহত বিল্লালের স্ত্রী রোকেয়া বেগম বাদী হয়ে তাঁদের দুজনকে আসামি করে আশুলিয়া থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

এমএইচ
BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes