সোমবার , ২৮ মে ২০১৮
শিরোনাম

কনডেম সেলে যেমন কাটছে কামারুজ্জামানের দিনরাত্রী

Kamaruzzaman_Jailঢাকা: ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ৮নং কনডেম সেলে অলস দিন কাটছে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের। জামাতে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ, তিন বেলা খাওয়া, ঘুম আর পত্রিকা পড়েই সময় কাটছে তার। কাশিমপুর কারাগারে থাকতে বইপড়া ও লেখালেখিও দৈনন্দিন রুটিনে ছিল কিন্তু এখন সে সুবিধা পাচ্ছেন না বলে তার পরিবারের অভিযোগ।

কামারুজ্জামানের দৈনন্দিন রুটিন সম্বন্ধে জানতে চাইলে সিনিয়র জেল সুপার ফরমান আলী বলেন, ‘আমার জানা মতে, তিনি ভালো আছেন সুস্থ্য আছেন। তিনি তার রুটিন মতোই দিনের বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের কাজ করছেন। কোন ধরনের সমস্যা অনুভব করছেন না।’

অবশ্য এ ব্যাপারে কামারুজ্জামানের বড় ছেলে হাসান ইকবাল বলেন, ‘বাবা কাশিমপুর কারাগারে থাকার সময় অনেক ধরনের বইপুস্তক ও বিভিন্ন পত্র পত্রিকা পড়তেন, লিখতেন। নামায ও কোরআন হাদিস পড়তেন। কিন্তু কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করার পর বাবা আগের মতো বিভিন্ন ধরনের বই পুস্তক পড়ার সুযোগ পান না। তাকে সে সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। কেন্দ্রীয় কারাগারে তাকে শুধু কয়েকটি দৈনিক পত্রিকা দেয়া হয়, যে গুলো পড়ে তিনি দিন কাটান।’

এছাড়া তিনি প্রতিদিন সকালে ফজরের নামাজ পড়ে অন্যান্য কাজ করে থাকেন। দিনের রুটিন মতো তাকে তিনবার খাবার সরবরাহ করা হয়। অন্যান্য কয়েদির মতোই তাকে সাভাবিক খাবার পরিবেশন করা হয়। তিনি দিনে পাঁচ ওয়াক্ত নামায জামাতের সাথে আদায় করেন বলে জানিয়েছেন হাসান ইকবাল।

এই মুহূর্তে কামারুজ্জামানের মানসিক অবস্থা কেমন? এমন প্রশ্নে তার বড় ছেলে হাসান ইকবাল বলেন, ‘বাবা সাভাবিক ও সুস্থ আছেন । তিনি ফাঁসির রায় শোনার পর মোটেও বিচলিত নন। তার মন ভেঙে পড়েনি। বাবা আমাদের সবাইকে ধৈর্য ধারণ করার কথা বলেছেন।’

রিভিউ পিটিশন নাকি প্রাণ ভিক্ষা চাইবেন কামারুজ্জামান? এ বিষয়কে সামনে রেখে তার চারজন আইনজীবী গত ৬ নভেম্বর কারাগারে দেখা করতে গেলে তিনি এ মামলার বিভিন্ন আইনি বিষয় নিয়ে পরামর্শ করে।

এ ব্যাপারে পরে ৭১বাংলা.কমের সঙ্গে কথা হয় আইনজীবী অ্যাডভোকেট শিশির মনিরের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায়ের কপি হাতে পাওয়ার পর ৩০ দিনের মধ্যে রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করবেন কামারুজ্জামান। এবং রিভিউ আবেদনের মাধ্যমে তিনি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলোর জবাব দিবেন আদালতের কাছে। রিভিউ আবেদন নিষ্পত্তি হওয়ার পর কামারুজ্জামান তার ভুল স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাইবেন কি না সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।’

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes