সোমবার , ২৮ মে ২০১৮
শিরোনাম

ঢাবিতে নীল দলের নিরঙ্কুশ জয়

DU-0120130908150332৭১বাংলা : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতি নির্ধারণী পর্ষদ সিন্ডিকেটের পর ডিন নির্বাচনেও জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগ ও বামপন্থি শিক্ষকদের নীল দলের প্রার্থীরা।

বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে ১০টি অনুষদের মধ্যে আটটিরই ডিন নির্বাচিত হয়েছেন নীল দলের শিক্ষকরা।

নির্বাচনে বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীপন্থী শিক্ষকদের সাদা দলের দুজন দুটি অনুষদের ডিন নির্বাচিত হলেও তাদের একজন ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

এর আগে গত সেপ্টেম্বরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতি নির্ধারণী পর্ষদ সিন্ডিকেটের নির্বাচনে শিক্ষক প্রতিনিধিদের ছয় পদের চারটিতেই জয় পায় নীল দল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দশটি অনুষদের ডিন নির্বাচন হলেও একটি অনুষদে একক প্রার্থী থাকায় বিনা ভোটে তিনি নির্বাচিত হওয়ায় কার্যত নয়টি অনুষদের ডিন নির্বাচনে এদিন ভোট দেন শিক্ষকরা।

সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে ভোটগ্রহণ হয়। নির্বাচনে ভোটার ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১৫৬ জন শিক্ষক, যাদের ১১১৫ জন ভোট দিয়েছেন।

বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নির্বাচন কমিশনার বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক কামাল উদ্দিন আহম্মেদ ফল ঘোষণা করেন।

গত এক দশক ধরে সাদা দলের দখলে থাকা কলা অনুষদের ডিন নির্বাচিত হয়েছেন নীল দলের মো. আখতারুজ্জামান। ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের এই অধ্যাপক পেয়েছেন ১৪৫ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা দলের আহমেদ আবদুল্লাহ জামাল পেয়েছেন ১০১ ভোট।

সাদা দলের নেতা ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সদরুল আমিন গত পাঁচ মেয়াদে ১০ বছর কলা অনুষদের ডিন ছিলেন। এবার তার জায়গায় তাদের পক্ষ থেকে প্রার্থী করা হয়েছিল ইতিহাসের শিক্ষক জামালকে, যিনি প্রথম আলো পত্রিকার সম্পাদক মতিউর রহমানের শ্যালক।

নীল দলের পক্ষ থেকে ফরিদ উদ্দিন আহমেদ সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন পুনর্নির্বিাচিত হয়েছেন। অর্থনীতি বিভাগের এই অধ্যাপক পেয়েছেন ১৩৪ ভোট; তার প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা দলের নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের জাহিদুল ইসলাম পেয়েছেন ৬০ ভোট।

ব্যাংকিং অ্যান্ড ইন্স্যুরেন্স বিভাগের শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম নীল দল থেকে বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন নির্বাচিত হয়েছেন। তার পক্ষে ভোট পড়েছে ১১৪টি; প্রতিদ্বন্দ্বী মার্কেটিং বিভাগের হরিপদ ভট্টাচার্য পেয়েছেন ৬৬ ভোট।

বিজ্ঞান অনুষদে রসায়ন বিভাগের আব্দুল আজিজ ৭৩ ভোট পেয়ে নীল দল থেকে বিজয়ী হয়েছেন; তার প্রতিদ্বন্দ্বী রসায়ন বিভাগের আনোয়ারুল ইসলাম পেয়েছেন ৪৯ ভোট।

উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের ইমদাদুল হক নীল দল থেকে জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন নির্বাচিত হয়েছেন। তার পক্ষে ভোট পড়েছে ৮৩টি। প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা দলের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের মোজাম্মেল হক পেয়েছেন ৬৭ ভোট।

চারুকলা অনুষদের ডিন নির্বাচিত হয়েছেন অঙ্কন ও চিত্রায়ন বিভাগের নিসার হোসেন। নীল দলের এ প্রার্থী পেয়েছেন ৫০ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী শিল্পকলার ইতিহাস বিভাগের শেখ মনির উদ্দিন পেয়েছেন সাত ভোট।

নীল দল থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদে ডিন নির্বাচিত হয়েছেন ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের রফিকুল ইসলাম। তিনি পেয়েছেন ৪১ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের এ এম সরওয়ার উদ্দিন চৌধুরীর পক্ষে পড়েছে ৩০ ভোট।

সাদা দলের প্রার্থী হিসেবে শুধু ফার্মেসি অনুষদে সাইফুল ইসলাম ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি অ্যান্ড ফার্মাকোলজি বিভাগের এই শিক্ষক পেয়েছেন ২৫ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী নীল দলের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের আ ব ম ফারুক পেয়েছেন ২২ ভোট।

আইন অনুষদে সাদা দলের শিক্ষক তাসলিমা মনসুর ১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলেও তিনি দলীয় প্রার্থী ছিলেন না। তার প্রতিদ্বন্দ্বী নীল দলের রহমত উল্লাহ পেয়েছেন ৯ ভোট। আর সাদা দলের প্রার্থী এস এম হাসান তালুকদার পেয়েছেন ৮ ভোট।

এর বাইরে আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অনুষদে সাদা দলের কোনো প্রার্থী না থাকায় নীল দলের এ এস এম মাকসুদ কামাল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

দ্বিতীয় মেয়াদে আইন অনুষদের ডিন নির্বাচিত হওয়া তাসলিমা মনসুর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “নির্বাচন স্বচ্ছ হয়েছে। তবে কলা অনুষদের ভোট গণনা শেষ হওয়া মাত্রই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা ছাড়া সকলেই জেনে গেল মো. আখতারুজ্জামান নির্বাচিত হয়েছেন।”

নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ জানিয়েছেন সাদা দলের নেতা সদরুল আমিনও।

“প্রতিকূল পরিবেশের মধ্যেও সাদা দল ডিন নির্বাচনে দুটি অনুষদে জয়লাভ করেছে,” নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর বলেছেন তিনি।

 

 

 

এমআর

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes