রবিবার , ২৭ মে ২০১৮
শিরোনাম

আরে শয়তান- এটি মিথ্যা ঘটনা, মিথ্যা স্বাক্ষী: মীর কাসেম আলী

৭১ বাংলা: মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য দিগন্ত মিডিয়া করপোরেশনের চেয়ারম্যান মীর কাসেম আলীর বিরুদ্ধে দু’টি অভিযোগে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যু দেয়া হয়েছে। রায় ঘোষণার পর পরই উত্তেজিত হয়ে পড়েন মীর কাসেম।

mir-kasem

রায় ঘোষণার পর উত্তেজিত মীর কাসেম আলী আসামির কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে বলেন, ‘আরে শয়তান- এটি মিথ্যা ঘটনা, মিথ্যা স্বাক্ষী, কালো আইন, ফরামায়েশি রায়। সত্য প্রতিষ্ঠিত হবে, মিথ্যা পরাজিত হবে। শিগরই শিগরই…।’

তিনি আঙুল উঁচিয়ে কাঁপা কাঁপা গলায় এসব কথা বলতে থাকেন। তখন দায়িত্বরত পুলিশ তাকে মীর কাসেম আলীকে নিচে নামিয়ে আনে। পরে তাকে ট্রাইব্যুনাল হাজতখানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে রায়ে ১১ ও ১২ নম্বর অভিযোগে মীর কাসেমকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়।

১১ নং অভিযোগ: শহীদ জসিম উদ্দিনসহ ছয়জনকে অপহণের পর নির্যাতন করা হয়। এতে জসিমসহ পাঁচজন নিহত হন এবং পরে লাশ গুম করা হয়।

১২ নং অভিযোগ: জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীসহ তিনজনকে অপহরণ করে নির্যাতন করা হয়। এতে দু’জন নিহত হন এবং তাদের লাশ গুম করা হয়।

এছাড়া ২ নম্বর অভিযোগে ২০ বছর, ৩ নম্বরে ৭ বছর, ৪ নম্বরে ৭ বছর, ৬ নম্বরে ৭ বছর, ৭ নম্বরে ৭ বছর, ৯ নম্বরে ৭ বছর, ১০ নম্বরে ৭ বছর, ১৪ নম্বরে ১০ বছরসহ মোট ৭২ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এছাড়া ১, ৫, ৮ ও ১৩ নম্বর অভিযোগে মীর আসেম আলীকে খালাস দেয়া হয়েছে।

এআর

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes