Monday , 6 July 2020
শিরোনাম

শিবির কর্মী মুহাম্মদ নাঈম উদ্দিন মুরাদের ইন্তেকালে ছাত্রশিবিরের শোক

পুলিশের গুলি ও নির্যাতনে পঙ্গুত্ববরণকারী সাবেক শিবির কর্মী মুহাম্মদ নাঈম উদ্দিন মুরাদের ইন্তেকালে ছাত্রশিবিরের শোক

২০১৩ সালের ১৮ই ফেব্রুয়ারী আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে সাজানো রায়ের প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামীর ডাকা শান্তিপূর্ণ হরতাল পালনের সময় পুলিশের গুলি ও নির্মম নির্যাতনে পঙ্গুত্ববরণকারী সাবেক শিবির কর্মী মুহাম্মদ নাঈম উদ্দিন মুরাদের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক যৌথ শোকবার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল সালাহউদ্দিন আইউবী বলেন, ২০১৩ সালের ১৮ই ফেব্রুয়ারী প্রশ্নবিদ্ধ ট্রাইবুনালে আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে প্রদত্ত অন্যায় রায়ের প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামীর ডাকা কর্মসূচি পালনের সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কালিকসার রাস্তার মাথায় পুলিশ নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করলে তিনি ঘাড়ে গুলিবিদ্ধ হন। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় চিকিৎসা না দিয়ে উল্টো তাঁর উপর নির্মম নির্যাতন চালায় পুলিশ। গুলি ও অমানবিক নির্যাতনের কারণে চিরতরে পঙ্গু হয়ে যান তিনি। দীর্ঘ দিন অসুস্থ ও চিকিৎসাধিন অবস্থায় থাকার পর আজ (৯ মে, শনিবার) রাত ২টা ২০মিনিটে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। তাঁর ইন্তেকালে ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীরা আজ শোকাহত। সত্য-ন্যায়ের পক্ষে ও বাতিলের মোকাবেলায় সুদৃঢ় প্রাচীরের ভূমিকা পালনে তিনি ছিলেন জীবন্ত নজির। পঙ্গুত্ববরণের পর দীর্ঘ সময় কষ্ট করলেও তাঁর ঈমানি জজবায় মোটেও ভাটা পড়েনি, আলহামদুলিল্লাহ। যা ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। সাংগঠনিক জীবনে তিনি সক্রিয় কর্মী ছিলেন। তাঁর ইন্তেকালে ইসলামী আন্দোলন একজন নিবেদিত প্রাণ, সাহসী ও সম্ভাবনাময় জনশক্তিকে হারালো। ইসলামী আন্দোলনে তাঁর অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। বাতিলের মোকাবেলায় ইসলামী আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে তাঁর সাহসীকতা ও ত্যাগ ইসলামী আন্দোলনের জনশক্তিদের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে, ইনশাআল্লাহ।

আমরা মহান আল্লাহ তায়ালার নিকট তার শাহাদাতের কবুলিয়াতের জন্য দোয়া করছি এবং তার শোক সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।