Monday , 6 April 2020
শিরোনাম
তাইজুলের বর্ষসেরা হওয়ার সুযোগ

তাইজুলের বর্ষসেরা হওয়ার সুযোগ

বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে ৪র্থ ইনিংসে স্বল্প রানের বিনিময় ৬ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়লেন তাইজুল ইসলাম। শুধু তাই না। চলতি বছরে টেস্টে উইকেট শিকারির তালিকায় আছেন সেরাদের কাতারে। তাইজুলের আছে আরো অর্জন।

কিন্তু, তারপরেও তিনি থেকে যান আড়ালের নায়কহয়ে। বাংলাদেশের ক্রিকেটে মেঘে ঢাকা চাঁদের নাম তাইজুল ইসলাম। কারণ সাদা পোশাকের ক্রিকেটে লাল বলের সাথে দারুণ মিতালি তার। রেকর্ড ভাঙ্গা গড়ার এই কারিগর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দেশের মাটিতে ঐতিহাসিক টেস্ট জয়েও রেখেছেন মহাগুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। দলের খুব প্রয়োজনে ব্রেক থ্রু এনে দেয়া ছাড়াও, চতুর্থ উইকেটে ১১ ওভার ২ বলে মাত্র ৩৩ রানের বিনিময় শিকার করেছেন ৬ উইকেট। যা চতুর্থ ইনিংসে বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে রেকর্ড সেরা বোলিং ফিগার। ক্যারিবীয়দের ব্যাটিং লাইনআপ ধূলিসাৎ করার সাথে আরো বেশ কিছু অর্জনে নাম লিখিয়েছেন নাটরে স্বপ্লভাষী এই স্পিনার। চলতি বছরে ৬ টেস্টে খেলে ইনিংসে ৪ বার ৫ বা তার অধিক উইকেট শিকার করা তাইজুল যৌথভাবে ক্যারিবীয় পেসার জেসন হোল্ডারের সাথে আছেন শীর্ষে। একক ভাবে সেরা আসনে ঢাকা টেস্টেই বসতে পারেন তাইজুল।

অর্জন আরো আছে তাইজুলের। এ বছরে সবচেয়ে বেশি ১২টি টেস্ট খেলে জিমি অ্যান্ডারসনের উইকেট শিকার ৪৩টি আর ৪৬টি উইকেট শিকার করে এক নম্বরে আছে আফ্রিকার কাগিসো রাবাদা। তিনি খেলেছেন ৯টি টেস্ট। এই তালিকার চার নম্বরে থাকা তাইজুল মাত্র ৬ টেস্টের ১১ ইনিংসে শিকার করেছেন ৪০ উইকেট। বছর শেষে টেস্টে শীর্ষ উইকেট শিকারি হবার সুযোগ থাকলেও, আর মাত্র একটি টেস্ট খেলার সুযোগ আছে তাইজুলের সামনে। আর রাবাদা এবং অ্যান্ডারসনের আছে একাধিক টেস্ট খেলার সুযোগ। ওহ! আরেকটা রেকর্ডের সামনে আছেন তাইজুল। তা হলো প্রথম বাংলাদেশি টেস্ট বোলার হিসেবে দ্রুত ১০০ উইকেট শিকারের খুবই কাছে তিনি। ২২ টেস্ট খেলা এই স্পিনারের রেকর্ডটি গড়তে হলে দরকার আর মাত্র ৬টি উইকেট। এর আগে মোহাম্মাদ রফিক ৩৩ আর সাকিব ২৮টি টেস্টে ছুঁইয়েছিলেন ১০০ টেস্ট উইকেটের ল্যান্ডমার্ক।

এলিট ক্রিকেটে তাইজুল তার মন্ত্রমুগ্ধ স্পিনে বাংলাদেশের জয়ে যেমন অবদান রাখছেন ঠিক তেমনি রেকর্ড জন্ম দিয়ে আবার ভেঙ্গে গড়ছেন নতুন ইতিহাস। কিন্তু, একজন তাইজুল তারপরেও কেন জেন থেকে যান তারকা খ্যাতির আড়ালেই।

এম এ মাহিন