Friday , 3 April 2020
শিরোনাম

করোনা থেকে সেরে উঠেছেন লক্ষাধিক মানুষ, ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পৃথিবী

করোনার কালো থাবা থেকে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পৃথিবী! করোনার আতঙ্ককে হার মানাচ্ছে সচেতনতা। ফলপ্রসূ হচ্ছে চিকিৎসকদের লড়াই। করোনা যেমন ক্রমশ নিজের কালো থাবায় হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে, তেমনি মারণ ভাইরাসের কবল থেকে হাজার হাজার মানুষকে ফিরিয়ে আনছে চিকিৎসকদের নিরলস পরিশ্রম। পরিসংখ্যান বলছে, এরই মধ্যে গোটা বিশ্বের প্রায় এক লাখ তিনশ ৪৫ জন মানুষ পুরোপুরি সুস্থ হয়ে গিয়েছেন করোনার কবল থেকে। তাদের অনেকেই ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়েছে হাসপাতাল থেকে। বাড়ি ফিরে সুস্থ স্বাভাবিক জীবনযাপন করছেন বেশিরভাগই। কারোনায় আক্রান্ত হয়ে এখনো পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে মোট ১৫ হাজার তিনশ সাত জন মানুষ। অর্থাৎ, মৃত্যুর তুলনায় সুস্থতার পরিমাণ কয়েকগুণ বেশি। এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন…

Review Overview

User Rating: Be the first one !
0

করোনার কালো থাবা থেকে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পৃথিবী! করোনার আতঙ্ককে হার মানাচ্ছে সচেতনতা। ফলপ্রসূ হচ্ছে চিকিৎসকদের লড়াই। করোনা যেমন ক্রমশ নিজের কালো থাবায় হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে, তেমনি মারণ ভাইরাসের কবল থেকে হাজার হাজার মানুষকে ফিরিয়ে আনছে চিকিৎসকদের নিরলস পরিশ্রম।

পরিসংখ্যান বলছে, এরই মধ্যে গোটা বিশ্বের প্রায় এক লাখ তিনশ ৪৫ জন মানুষ পুরোপুরি সুস্থ হয়ে গিয়েছেন করোনার কবল থেকে। তাদের অনেকেই ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়েছে হাসপাতাল থেকে। বাড়ি ফিরে সুস্থ স্বাভাবিক জীবনযাপন করছেন বেশিরভাগই।

কারোনায় আক্রান্ত হয়ে এখনো পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে মোট ১৫ হাজার তিনশ সাত জন মানুষ। অর্থাৎ, মৃত্যুর তুলনায় সুস্থতার পরিমাণ কয়েকগুণ বেশি। এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪০ হাজারের কাছাকাছি মানুষ। অর্থাৎ, প্রত্যেক ৭ জন আক্রান্তের মধ্যে ২ জন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে গেছেন। এই পরিসংখ্যান ক্রমশ আশা জাগাচ্ছে চিকিৎসকদের মধ্যে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আগেই জানিয়েছে করোনার সংক্রমণের গতির তুলনায় এতে মৃত্যুর হার একেবারেই উদ্বেগজনক নয়। করোনায় মৃত্যুর হার ২ শতাংশেরও কম। তাছাড়া ৮৫ শতাংশ আক্রান্তের মধ্যে এর প্রভাব একেবারেই নগণ্য। শুধু সচেতনতার প্রসার ঘটাতে পারলেই এই রোগকে রুখে দেওয়া সম্ভব। তবে এত আশার কথার মধ্যেও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যাটা সত্যিই উদ্বেগজনকভাবে বাড়ছে। যা নিয়ন্ত্রণ করতে আরো কড়া পদক্ষেপ নিতে হবে আক্রান্ত দেশগুলোকে। সচেতন করতে হবে নাগরিকদের বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।